‘আমার মতো উপদেষ্টা থাকলে খালেদার একটি চুলও কেউ স্পর্শ করতে পারতো না’

টাঙ্গাইলের সখীপুরে বিএনপি ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে নাশকতা সৃষ্টির পরিকল্পনার অভিযোগে পুলিশের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তম।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় স্থানীয় ডাকবাংলো চত্বরে উপজেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ আয়োজিত এক প্রতিবাদ সভায় তিনি এ দাবি জানান।

কাদের সিদ্দিকী বলেন, যেসব আলামত উল্লেখ করে মামলা হয়েছে, এসব দিয়ে কখনো নাশকতা হয় না। তাই আমি শুধু আমার দলের নেতার নাম বাদ দিতে বলবো না, বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে করা মামলারও প্রত্যাহার চাই। তিনি মামলার ব্যাপারে পুলিশের কড়া সমালোচনা করেন।

এছাড়াও খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খানকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ওই রকম উপদেষ্টা আছে বলেই খালেদা জিয়া জেলখানায়। আমার মতো উপদেষ্টা থাকলে দেখা যাইতো খালেদা জিয়ার একটি চুলও স্পর্শ করতে পারতো না।

প্রতিবাদ সভায় উপজেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আতোয়ার রহমানের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান বীরপ্রতীক, জেলা কমিটির সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক এসএম সালেক হিটলু, সহসভাপতি আবদুল হালিম সরকার, উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মীর জুলফিকার শামীম, যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক হাবিবুন্নবী সোহেল প্রমুখ।

মামলার বিষয়ে সখীপুর থানার ওসি এসএম তুহিন আলী বলেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ওই নেতার নাম মামলায় ভুল করে লেখা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে বিএনপির শামীম নামের এক নেতার নামের স্থলে তার নাম উঠেছে। মামলাটির সংশোধনী পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৭ সেপ্টেম্বর সখীপুর থানা পুলিশ বিএনপির ১৬ জন ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মীর জুলফিকার শামীমের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে নাশকতা সৃষ্টির পরিকল্পনার মামলা করে। ওই মামলার প্রতিবাদেই উপজেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে।

ইতোমধ্যে ওই মামলার ছয় আসামিকে (বিএনপি নেতা) পুলিশ গ্রেফতার করে টাঙ্গাইল আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে।

news portal website developers eCommerce Website Design