বাসচাপায় এসআইকে হত্যা

ছয় দিন আগে চট্টগ্রামে রেজাউল করিম রনিকে বাস থেকে ফেলে চাপা দিয়ে হত্যার রেশ এখনো কাটেনি। এর মধ্যেই রাজধানীতে বাসচাপায় এক এসআইকে হত্যা করল এক চালক।

ওই এসআই’র নাম উত্তম কুমার সরকার (৩৪)। তিনি ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) রূপনগর থানায় কর্মরত ছিলেন।

রোববার বিকালে মিরপুরের রাইনখোলা মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, বিকাল সোয়া ৪টার দিকে এসআই উত্তম কুমার মিরপুরের বেড়িবাঁধ থেকে ঈগল পরিবহনের একটি বাস জব্দ করে থানায় নিয়ে আসছিলেন। তিনি ছিলেন ওই বাসটির সামনে। বাসের চালক ইচ্ছে করেই বেপরোয়া গতিতে চালাচ্ছিল। চালক বারবার মোটরসাইকেলের আগে যাওয়ার চেষ্টা করছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ আরও জানায়, বাসটির বেপরোয়া গতি দেখে এসআই উত্তম কুমার রাইনখোলা মোড়ে স্পিডব্রেকারে এসে বাসটির সামনে মোটরসাইকেল দিয়ে ব্যারিকেড দেন। এ সময় চালক ক্ষিপ্ত হয়ে আরও বেপরোয়া হয়ে মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। প্রায় ১০০ গজ পর্যন্ত মোটরসাইকেলটিকে হেঁচড়ে নিয়ে যায় চালক। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

পুলিশ জানায়, ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক বাসচালক বিল্লাল হোসেন ও তার সহকারীকে আটক করেছে পুলিশ। ঈগল পরিবহনের ওই বাসটি (ঢাকা মেট্টো ব-১৪-৬৮২৮) জব্দ করা হয়েছে। এসআই উত্তম কুমারের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

শাহ আলী থানা পুলিশ জানায়, চার দিন আগে ঈগল পরিবহনের বাসটি রূপনগর থানাধীন বেড়িবাঁধ এলাকায় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। এ নিয়ে রূপনগর থানায় একটি অভিযোগ জমা পড়ে। এসআই উত্তম কুমার রোববার বাসটি খুঁজে পেয়ে জব্দ করেন। পরে তিনি বাসটিকে থানায় নিয়ে আসছিলেন। ঘটনার সময় বৃষ্টি হচ্ছিল। ছুটির দিন হওয়ায় রাস্তা ছিল ফাঁকা।

পুলিশের দারুস সালাম জোনের এসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ঈগল পবিহনের সামনে ছিল উত্তম কুমারের মোটরসাইকেল। পেছন থেকে বাসটি তাকে চাপা দিলে গুরুতর আহত হন। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ জানায়, এসআই উত্তম কুমারের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে। তিনি পরিবার নিয়ে মোহাম্মদপুর এলাকায় থাকতেন। দেড় বছর ধরে তিনি রূপনগর থানায় কর্মরত ছিলেন। কিছুদিন আগে তিনি এএসআই থেকে এসআই পদে পদোন্নতি পান। এর আগে তিনি পল্লবী এবং শাহ আলী থানাতে কর্মরত ছিলেন।

এদিকে রূপনগর থানার ওসি শাহ আলম বলেন, ঘটনার পর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছুটে যান। পুরো ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

শাহ আলী থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, বাসটি বেপরোয়া গতিতে চালাচ্ছিলেন চালক। বাসচালককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এসআই উত্তম কুমারের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

news portal website developers eCommerce Website Design