যশোরে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী পালিত

ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দিপনায় সনাতন ধর্মীয় নানা মাঙ্গলিক ক্রিয়াদি, পূজার্চণা, বৈচিত্রময় বিশাল মঙ্গল শোভাযাত্রা আর আলোচনাসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ‘শ্রীকৃষ্ণ’ শীর্ষক বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণের মধ্য দিয়ে যশোরেও যুগাবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উদযাপিত হয়েছে।

জন্মাষ্টমীর দিনে সূর্যোদয়ের পরপরই বিভিন্ন মন্দির ও বাসা-বাড়িতে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের বিশেষ পূজা ও হোমযজ্ঞ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ১০টায় যশোরের ঐতিহাসিক টাউন হল ময়দানের রওশন আলী মঞ্চের শতাব্দী বটমূলে সঙ্গীতানুষ্ঠান ও আলোচনা সভা হয়।

যশোর জেলা ও সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের আয়োজনে এ উৎসবের প্রথম পর্বে ভক্তিমূলক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পর আলোচনা শেষে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বালন করেন প্রধান অতিথি যশোর-৫ মণিরামপুর আসনের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্য।

বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল আওয়াল, পুলিশ সুপার মঈনুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার। সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দুলাল সমাদ্দার। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট যশোরের সহকারী পরিচালক লিটন অধিকারী।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি যশোর-৫ মণিরামপুর আসনের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। আবহমানকাল থেকে এ দেশে সকল ধর্মের অনুসারীরা পারস্পরিক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য বজায় রেখে নিজ নিজ ধর্ম পালন করে আসছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি তাই বাংলাদেশের মহান ঐতিহ্য। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই ঐতিহ্য অব্যাহত রেখে পারস্পরিক সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতি অটুট রাখতে হবে।

তিনি বলেন, শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায় প্রতিষ্ঠার জন্য, সকল অশুভের বিনাশে তার আবির্ভাব সকলের জন্য এক অনন্য প্রেরণা। শ্রীকৃঞ্চের জন্মদিনে শুভশক্তির চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে হবে। পরমত সহিষ্ণু হয়ে সকল অনাচার অত্যাচার দুর করতে সঠিকভাবে ধর্মীয় নিয়মনীতি মেনে চলতে হবে। অতিথিবৃন্দ জন্মাষ্টমীতে সকলকে শুভেচ্ছা জানান।

অনুষ্ঠানে গীতার শ্লোক আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের পুরস্কার প্রদান করেন অতিথিবৃন্দ।
আলোচনা শেষে বিচিত্র সাজ-সজ্জায় শঙ্খ, উলুধ্বনী সাথে জয়ডংকা, কাসর-ঘন্টার তালে তালে বিশাল মঙ্গল শোভাযাত্রা শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে নীলগঞ্জ মহাশ্মশানে এসে শেষ হয়। এ সময় জয়ডংকার তালে তালে শ্রীকৃষ্ণের বন্দনায় মেতে ওঠেন ভক্তবৃন্দ। শেষে ভক্তদের মাঝে অন্ন প্রসাদ বিতরণ করা হয়।

এদিকে শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে এদিন সকালে সনাতন বিদার্থী সংসদ যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ শাখার উদ্যোগে কলেজ ক্যাম্পাসের মধুমঞ্চে শ্রীকৃষ্ণের পূজা বিশেষ পূজা এবং দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বালন অনুষ্ঠিত হয়। মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বালন করেন যশোর সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শৈলেশ কুমার রায়, জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদিকা তন্দ্রা ভট্টাচার্য্য, জ্যোতিষবিদ এসকে ঘোষ, সহকারী অধ্যাপক অমলেন্দু বিশ্বাস, অরবিন্দু কুন্ডু, কাকলী বসু, সুনির্মল মজুমদার, বিষ্ণু কুমার পাল, অলোক বসু, সনাতন বিদার্থী সংসদ যশোরের সমন্বয়ক বিজন চৌধুরী, সংসদের সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ শাখার সভাপতি অভিজিৎ চক্রবর্তী, সাধারণ সম্পাদক সত্যজিৎ মজুমদার, দেবাশীষ বিশ্বাস, উৎপল প্রামানিক প্রমুখ। পূজা, প্রার্থণা ও প্রসাদ বিতরণ শেষে সুসজ্জিত মঙ্গল শোভাযাত্রা শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

news portal website developers eCommerce Website Design