মুক্তাগাছায় যুবলীগের আহবায়ককে লক্ষ্য করে ককটেল নিক্ষেপ

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলমকে লক্ষ্য করে ককটেল হামলার ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে শহরের নাপিতখোলা মোড় এলাকায় ১০/১২ জন দুর্বৃত্ত তাকে লক্ষ্য করে পরপর ৯টি ককলেট ছুড়ে মারে বলে জানা গেছে। পরে রাত ১০টার দিকে শহরের নন্দীবাড়ী এলাকায় জালাল উদ্দিন নামে যুবলীগের এক কর্মীকে কুপিয়ে আহত করা হয়। আহত জালাল জাহাঙ্গীর আলমের অনুসারী বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাত সোয়া ৯টার দিকে নাপিতখোলা মোড় এলাকায় যুবলীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম একটি ক্লিনিকে যাবার সময় তাকে লক্ষ্য করে পর পর ৯টি ককটেল ছোঁড়া হয়। এসময় ৬টি ককটেল বিষ্ফোরিত হয়। পরে তিনটি তাজা ককটেল পুলিশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় শহরে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। প্রতিবাদে জাহাঙ্গীর আলমের অনুসারীরা রাত সাড়ে ৯টা থেকে ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। এ সময় সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম সাংবাদিকদের বলেন, হামলার সময় হামলাকারীরা মুখ বাঁধা অবস্থায় ছিল। তিনি অভিযোগ করে আরো বলেন, তার প্রতিপক্ষ উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম মাহবুবুল আলম মনির লোকজনই তাকে লক্ষ্য করে ককটেল নিক্ষেপ করে। এ বিষয়ে উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম মাহবুবুল আলম মনির সাথে যোগাযোগ করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

মুক্তাগাছা থানার ওসি আলী আহমেদ মোল্লা বলেন, তারাবি নামাজ পড়ার সময় হঠাৎ শহরের নাপিতখোলা মোড়ে কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এছাড়া তিনটি তাজা ককটেল উদ্ধার করা হয় ঘটনাস্থল থেকে।

news portal website developers eCommerce Website Design