ভেনেজুয়েলায় সামরিক হস্তক্ষেপের হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লাতিন আমেরিকার দেশ ভেনেজুয়েলায় উদ্ভূত রাজনৈতিক সংকট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্র সামরিক হস্তক্ষেপ করতে পারে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সম্প্রতি গণভোট আয়োজনের পর উত্তপ্ত ভেনেজুয়েলা নিয়ে শুক্রবার আকস্মিক এমন বাক্যবাণ ছুড়লেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

ভেনেজুয়েলায় আসনের দিক থেকে বিরোধী সংখ্যাগরিষ্ঠ সংসদের নির্বাহী ক্ষমতা কেড়ে নিতে সম্প্রতি আয়োজিত গণভোটের পর থেকে দেশজুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ট্রাম্পের সামরিক হস্তক্ষেপের অভিলাষকে ‘উন্মত্ততা’ বলেছে হুগো শাভেজের মৃত্যুর পর ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট হওয়া বামপন্থী নেতা নিকোলা মাদুরোর প্রশাসন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক আলাপকালে  ট্রাম্প বলেন, ‘লোকজন কষ্টের মধ্যে আছে এবং মারা যাচ্ছে। ভেনেজুয়েলার জন্য আমাদের হাতে অনেক অপশন আছে। এর মধ্যে প্রয়োজনে সামরিক হস্তক্ষেপের বিষয়টিও আছে।’

ট্রাম্পের ওই বক্তব্যকে ‘উন্মত্ত আচরণ’ বলে মন্তব্য করেছেন ভেনেজুয়েলার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ভ্লাদিমির পাদ্রিনো।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের দপ্তর হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, শুক্রবার ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনালাপের একটি অনুরোধ জানিয়েছেন নিকোলা মাদুরো, যেটিকে দৃশ্যত নাকচ করে দেওয়া হবে।

হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা হলেই ট্রাম্প ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলবেন।

ভেনেজুয়েলার সরকারের পক্ষ থেকে দীর্ঘদিন ধরে বলা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের কর্তাব্যক্তিরা দেশটিতে হামলার পরিকল্পনা করছেন। লাতিন আমেরিকার দেশটির এক সাবেক জেনারেল চলতি বছরের শুরুতে রয়টার্সকে বলেন, বিষয়টি মাথায় রেখে কিছু বিমানবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র উপকূলে মোতায়েন রাখা হয়েছে।