ইন্টারনেটে বাড়ছে প্রেমের প্রবণতা

love internetলাইফস্টাইল ডেস্ক : দিন বদলের সঙ্গে সহজ হয়েছে বিশ্বব্যাপী যোগাযোগ ব্যবস্থা। প্রযুক্তিনির্ভর এই দুনিয়ায় একাকিত্ব আর উদাসীনতা তাড়ানো সহজ হয়েছে। ইচ্ছে হলেই চুটিয়ে আড্ডা দিতে পারেন বন্ধুর সঙ্গে। সেখানে বিনোদনের রয়েছে পর্যাপ্ত সুযোগ। আর তাই, নানা বয়সের মানুষের ইন্টারনেটে আসক্তি বাড়ছে উল্লেখযোগ্য হারে। এরই মাঝে তাৎক্ষণিক কিছু সুযোগ সুবিধার জন্য ইন্টারনেটে বেড়ে চলেছে প্রেম করার প্রবণতা। যেমন-

সহজ উপায় :

প্রযুক্তি নির্ভরতায় দেশ বিদেশের অপরিচিতদের সঙ্গে পরিচিতি বা বন্ধুত্ব হয়ে যায় খুব সহজে। কখন কী করছেন, তাকে আপডেট জানাচ্ছেন। সেও জানাচ্ছে তার সব কিছু। দূরে থাকলে দূজনের অনুভূতি ভাগাভাগির সব ব্যবস্থা করে দিচ্ছে যোগাযোগ মাধ্যমগুলো। আর তাই অনলাইনে প্রেম করার আগ্রহ বাড়ছে প্রতিনিয়ত।

সময় বাঁচায় :

সম্পর্কের গভীরতা বাড়াতে দুজনের সঙ্গে দেখা করাটা খুব জরুরি। কিন্তু ব্যস্ততার এই সময়ে স্কাইপি বা ভিডিও চ্যাটে দুজন দুজনার সঙ্গে দেখা করে নিতে পারেন। তাই এই মাধ্যমে সম্পর্ক চালানোর গ্রহণযোগ্যতাও বাড়ছে প্রতিনিয়ত।

তাৎক্ষণিক যোগাযোগ :

অনলাইনে সম্পর্ক রাখার উপকারী দিক হলো যেকোনো সময়ে যোগাযোগের সুযোগ থাকে। মন চাইলেই মনের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করার সম্ভব হয়। ফলে অনলাইনে প্রেমের প্রতি মানুষ একটু বেশিই আগ্রহী হয়ে উঠছেন।

খরচ বাঁচায় :

প্রিয় মানুষটিকে দেখার জন্য মনের মধ্যে ছটফট করতে থাকে সব সময়। কিন্তু তার কাছে ছুটে গেলেই তো আর হলো না, পকেট থাকা চাই চাঙ্গা। সব সময় সেটা না থাকলে মনের শখগুলো কষ্টে পরিণত হতে থাকে। অথচ ইন্টারনেট আপনার শখগুলো বাঁচাতে সব সময় হাজির। খুব কম খরচেই তাকে দেখা আর কথা বলার সুযোগ করে দিচ্ছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই অনেকে এই সুযোগকেই বেছে নিচ্ছেন।

লোকচক্ষুর ভয় নেই

অনলাইন প্রেমের সব চেয়ে বড় সুবিধা হলো, যখন তখন মনের মানুষের সঙ্গে সব কথা ভাগাভাগি করে নিচ্ছেন। অপরদিকে লোকচক্ষুর ভয় থাকছে না মোটেও। আপনার রাজ্যে আপনিই রাজা। যখন তখন দেখা করা, আড্ডা দেয়ায় বদনাম রটারও সুযোগ নেই। তাই সেসব প্রেমিক-প্রেমিকার কাছে অনলাইনের গুরুত্ব বেড়ে চলেছে অনেক বেশি।

তবে ইন্টারনেটে প্রেমের ক্ষেত্রে অপ্রীতিকর ঘটনাও কম নেই। তাই অপরপ্রান্তের সঙ্গীর সঙ্গে আপনার বোঝাপড়াটা হতে হবে একদম পরিষ্কার। তাহলে ইন্টারনেটে প্রেম হবে স্বস্তিদায়ক।