ধোনির বাড়িতে নিরাপত্তা জোরদার

স্পোর্টস ডেস্ক : ২০০৭ সালে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কাছে হারের পর কোণঠাসা হয়ে পড়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। তাদের বাড়িতে হামলা করে বসেছিলেন সমর্থকরা। তাই ক্রিকেটারদের বাড়িতে জোরদার করা হয়েছিল নিরাপত্তা। সেই দুঃস্মৃতি এখনও তাড়িয়ে বেড়ায় মহেন্দ্র সিং ধোনি, শচীন টেন্ডুলকার, বীরেন্দর শেবাগ, রাহুল দ্রাবিড়দের।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের কাছে হার কি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেন ভারতীয় সমর্থকরা? চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে সরফরাজ আহমেদের দলের কাছে ১৮০ রানে পরাজিত হয়েছে টিম ইন্ডিয়া। ওই ম্যাচে ব্যাট হাতে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছেন ধোনি। মাত্র ৪ রান করতেই হাসান আলির কাছে ধরাশায়ী হয়েছেন তিনি।

ধোনির বাড়িতে তাই এবারও হামলা হতে পারে। এই আশঙ্কা ভারতীয় পুলিশের। তাই রাঁচিতে অবস্থিত তার বাড়িতে জোরদার করা হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা। ২০১৪ সালে পাকিস্তানের কাছে ভারত হেরে গেলে ধোনির বাড়িতে হামলা করে বসেছিলেন ক্ষৃব্ধ সমর্থকরা।

প্রসঙ্গত, প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ওঠে পাকিস্তান। আর প্রথম চেষ্টায়ই সফল সরফরাজের দল। অচেনা ফাখর জামানের সেঞ্চুরিতে ভর করে চার উইকেটে ৩৩৮ রান তোলে পাকিস্তান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে মোহাম্মদ আমিরের তোপে পড়ে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ১৫৮ রানে অলআউট হয়ে যায় টিম ইন্ডিয়া।