বিয়ের জন্য ধর্ম পরিবর্তন করেছেন যে ৫ নায়িকা!

hema maliniবিনোদন ডেস্ক: কথায় বলে, ভালোবাসার জন্য সব কবুল। কিন্তু ভালোবেসে বিয়ের পথে যদি বাধা হয়ে দাঁড়ায় ধর্ম? তাহলে নিজের জন্মগত ধর্মও বিসর্জন দিতে প্রস্তুত বলিউড তারকারা। এখানে রইল কয়েকজন বলিউড অভিনেত্রীর কথা, যাঁরা বিয়ের প্রয়োজনে নিজেদের ধর্ম পরিবর্তন করেছেন।

হেমা মালিনী: ড্রিম গার্ল হেমা আর ধর্মেন্দ্রর প্রেমকাহিনী অনেক ঝড়-ঝাঁপটার মধ্যে দিয়ে অগ্রসর হয়েছিল। হেমা অনেক নামিদামি অভিনেতার কাছ থেকেই বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন। তাঁদের মধ্যে ছিলেন সঞ্জীব কুমার এবং জিতেন্দ্রর মতো মানুষও। কিন্তু হেমা বদ্ধপরিকর ছিলেন ভালোবাসার মানুষ ধর্মেন্দ্রকেই বিয়ে করবেন। কিন্তু বিয়ের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ান ধর্মেন্দ্রর প্রথম স্ত্রী প্রকাশ কৌর। তিনি ধর্মেন্দ্রকে বিবাহ বিচ্ছেদ দিতে প্রস্তুত ছিলেন না। এই বাধা কাটাতে ১৯৭৯ সালে হেমা ও ধর্মেন্দ্র দুজনেই ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। মুসলিম ম্যারেজ অ্যাক্ট অনুসারে যেহেতু একাধিক বিবাহ আইনসিদ্ধ, সেহেতু বিয়ের বাধা দূর হয়।

শর্মিলা ঠাকুর: শর্মিলা ঠাকুর প্রেমে পড়েন ভারতের তৎকালীন ক্রিকেট টিমের ক্যাপ্টেন মনসুর আলি খান পতৌদির। হিন্দু বাঙালি পরিবারের মেয়ে শর্মিলা মুসলমান পতৌদিকে বিয়ে করার জন্য ই‌সলাম ধর্মে দীক্ষিত হন।

নার্গিস: নার্গিসের সঙ্গে প্রেম সম্পর্ক গড়ে ওঠে সুনীল দত্তের। মুসলমান নার্গিস হিন্দু সুনীল দত্তকে বিয়ে করার জন্য হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করেন। নার্গিসের নতুন নাম হয় নির্মলা দত্ত।

অমৃতা সিংহ: সাইফ আলি খানকে ভালোবেসে বিয়ে করার জন্য অমৃতা ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন। ১৩ বছর ঘর সংসার করার পর অবশ্য তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এবং তারপর সাইফ বিয়ে করেন কারিনাকে।

আয়েশা টাকিয়া: ২০০৯ সালে আয়েশা বিয়ে করেন ফারহান আজমিকে। এই বিয়ের জন্য আয়েশাকে ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হতে হয়।